আপনার আত্মবিশ্বাস আছে তো??

আপনার আত্মবিশ্বাস আছে তো??

পৃথিবীর সব থেকে উন্নত ও জ্ঞান বিবেক সম্পূর্ণ প্রাণী হলো মানুষ । মানুষের মানবিক গুণাবলি মানুষকে অন্যান্য জীব থেকে আলাদা করে। (মানুষের গুণাবলি সম্পর্কে জানতে এই পোস্টটি পড়ুন )

তবে মানুষ হিসেবে একটা অতি প্রয়োজনীয় গুণাবলি হলো আত্মবিশ্বাস । এই গুণ টা থাকলে পৃথীবীর সর্বোচ্চ শৃঙ্গ থেকে সব কিছুই অর্জন করা যায় । পৃথিবীর সর্বোচ্চ শৃঙ্গের নাম হলো মাউন্ট এভারেস্ট যা তৎকালীন বৃটিশ জর্জের নামে নামকরণ করা হয় । এই মহান শৃঙ্গের উচ্চতা নির্ণয় করেছেন একজন বাঙালি । তিনি সেই সময় যেই সাহসিকতার সাহায্যে এই পর্বতের বা শৃঙ্গের উচ্চতা নির্ণয় করেছেন তা শূধূ মাত্র সম্ভব হয়েছে তার আত্মবিশ্বাসের দ্বারা । আত্মবিশ্বাস তাকে পৌছে দিয়েছে ঐ পর্বতের চূড়ায় উঠতে । সারা পৃথিবীর এত মানুষের মধ্যে তিনি সর্বপ্রথম সাহস , আত্মবিশ্বাসের মাধ্যমে সফল হয়েছেন এই পর্বত শৃঙ্গের উচ্চতা নিরুপণ করতে । তাহলে তার এই সাহস এসেছে কোথা থেকে ?? পৃথিবীর সমুদ্রসমতল থেকে এত উচু শৃঙ্গের উচ্চতা মাপার মতো সাহস তার কিভাবে হলো? এই প্রশ্ন গুলোর একটাই উত্তর তা হলো তার ছিলো অদম্য ইচ্ছা শক্তি আর নিজের উপর বিশ্বাস যাকে আমরা সংক্ষেপে বলতে পারি আত্মবিশ্বাস

আস্সালামু আলাইকুম ,
অন্যান্য ধর্মালম্বীদের প্রতি রইলো অন্তরের অন্তস্থল থেকে গভীর শ্রদ্ধাভালোবাসা

আমি, আসিফ আমান জিহাদ(রংধনু) আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি নতুন একটি পোস্ট বা আর্টিকেল।

আমার আজকের আর্টিকেলটির বিষয় হলো আত্মবিশ্বাস । আপনার আত্মবিশ্বাস আছে কি না , কিভাবে অর্জন করবেন এবং এর গুরুত্ব সম্পর্কে জানতে পারবেন এই আর্টিকেলের মাধ্যমে ।

তাহলে কি আর দেরি করা যায়? না যায় চলুন জেনে নেই এই বিষয়ে ।
প্রথমে আমরা জানবো আত্মবিশ্বাস কি?

আত্মবিশ্বাস

কোনো কিছু জানার আগে তার কাকে বলে জানা উচিৎ এতে করে ঐ সম্পর্কে জানা আরো সহজ হয়ে উঠে । চলুন এর কাকে বলে জেনে নেই ।

এটা মূলত দুটি শব্দের যোগ করে গঠিত হয়েছে । বাংলা ভাষায় অনেক শব্দ আছে যেগুলো একাধিক শব্দযোগে গঠিত হয় যেমন: যোগাযোগ, আত্মনির্ভরশীল ইত্যাদি । আত্মবিশ্বাস শব্দটি ঠিক এমনি দুটি শব্দের যোগে গঠিত । এই শব্দ দুটি হলো আত্ম ও বিশ্বাস । আমরা যদি এই শব্দ দুটির অর্থ বিশ্লেষণ করি তাহলে দেখতে পারবো এগুলোর অর্থ হলো

আত্ম মানে নিজ, নিজের , স্বীয় । আর বিশ্বাস শব্দটির অর্থ হলো আস্থা । তাহলে আত্মবিশ্বাস শব্দটির যদি আমরা পূর্ণাঙ্গ অর্থ করতে চাই তাহলে দেখতে পারবো এটা হলো নিজের প্রতি আস্থা রাখা। যখন কোনো ব্যক্তি নিজের কাজের প্রতি, নিজের উপর, নিজের কর্মের উপর মনে প্রাণে আস্থা রাখতে পারবেন তখন বলতে পারবো আমরা ঐ ব্যক্তিটির নিজের প্রতি আস্থা আছে । এই আস্থাই তাকে জীবনের সকল বাধা কে পার করে সামনে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে।

আত্মবিশ্বাস এর অন্য অর্থ হলো আত্মপ্রত্যয় । অর্থাৎ নিজের শক্তিমত্তা, সক্ষমতা ও যোগ্যতা সম্পর্কে দৃঢ় বিশ্বাস কে বলা হয় আত্মবিশ্বাস । যেকোনো কাজ আমি যথাযথ ভাবে করতে পারব এবং সামর্থ্যের সবটুকু দিয়ে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জনে সফল হবো এ বিশ্বাস নিজের মনের মধ্যে লালন ও ধারণ করাকে আত্মবিশ্বাস বলে ।

এই না হয় গেল আত্মবিশ্বাসের কাকে বলে , কি বুঝায় এই আত্মবিশ্বাস এর দ্বারা । এখন চলুন দেখি আপনার এই আত্মবিশ্বাস আছে কি না?

আপনার আত্মবিশ্বাস আছে কি না?

আপনার আত্মবিশ্বাস আছে কিনা তা আপনি নিচের গুণ গুলোর মধ্যে জানতে পারবেন । যদি আপনার নিচের গুণ গুলো আপনার মধ্যে থাকে তাহলে বলা যাবে আপনার আত্মবিশ্বাস আছে । গুণ গুলো(প্রশ্ন আকারে গুণ বলা হয়েছে যাতে বুঝতে সমস্যা হয় )

  • আপনার কি মনে হয় আপনি একজন সৎ মানুষ?
  • আপনার কি মনে হয় আপনাকে যদি কোনো কাজ দেয়া হয় তাহলে তা আপনি করতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন?
  • আপনার কি মনে  হয় আপনার সামর্থ্যের কাজ গুলো আপনি ভালো করে করতে পারবেন?
  • আপনার কি নিজের প্রতি আস্থা আছে?
  • আপনার কি মনে হয় যে আপনার উপর আস্থা রাখতে পারে মানুষ?
  • আপনার কি এই বিশ্বাস টা আছে আপনার উপর বিশ্বাস করলে কেউ সে হতাশ হবে না?
  • আপনার কি মনে আপনি যা শিক্ষাগ্রহণ করেছেন তা আপনার কর্মক্ষেত্রের জন্য যথেষ্ট?
  • আপনার এই বিশ্বাস টা কি আছে যে যদি আপনাকে কোনো নেতৃত্ব এর দায়িত্ব হয় তাহলে আপনি সঠিক ভাবে করতে পারবেন ?
  • আপনার কি এই বিশ্বাস টা আছে যে আপনার দ্বারা কারো কোনো ক্ষতি হবে না ?
  • আপনার কি এই বিশ্বাস টা আছে যে আপনি সৎ, হালাল পথে উপার্জন করেন ?
  • আপনি যা উপার্জন করে আপনার পরিবারকে দিচ্ছেন তা তাদের জন্য হালাল এবং তা আপনার দ্বারা উপার্জিত সঠিক উপায়ে এই বিশ্বাস টা কি আপনার আছে?

যদি উপরের প্রশ্ন গুলো উত্তর আপনি হ্যাঁ উচ্চস্বরে এবং দৃঢ়তার সাথে বলতে পারেন তাহলে হ্যাঁ আপনার আত্মবিশ্বাস আছে । অর্থাৎ আপনি নিজের প্রতি বিশ্বাস করেন , নিজের প্রতি আপনার আস্থা আছেন । আপনাকে Congratulation আপনি একজন আত্মবিশ্বাসী মানুষ । বর্তমানের অধিকাংশ মানুষ আত্মবিশ্বাসী নয় , তারা নিজের উপর বিশ্বাসী নয় যার কারণে পৃথিবীটা অনেকটা রোবট নির্ভর হয়ে যাচ্ছে যা আমাদের জন্য অভিশাপ হয়ে উঠতে পারে সেই কথা অন্যদিন বলবো কেন আমি অভিশাপ বললাম ।

এই গেল আপনি আত্মবিশ্বাসী কিনা তা নিয়ে কথাবার্তা চলুন এবার জেনে নেই আত্মবিশ্বাসের গুরুত্ব

 

“আত্মবিশ্বাসের গুরুত্ব”

আত্মবিশ্বাস মানুষের মানবিক গুণাবলির মধ্যে অন্যতম একটি গুণাবলি । আত্মবিশ্বাস মানুষকে দ্রুত সিদ্ধান্তে পৌছাতে সাহায্য করে । এতে মানুষ কোনো বিষয়ে সহজে সিদ্ধান্ত নিতে পারে । আত্মবিশ্বাসীরা নিজেদের শক্তি মত্তা ও সক্ষমতার উপর দৃঢ় বিশ্বাসী হওয়ায় তারা দ্রুত কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারে এবং সেই অনুযায়ী কাজ করতে পারেন। আত্মবিশ্বাসী মানুষেরা সহজেই সমাজের বাকী মানুষের কাছ থেকে আস্থা অর্জন করতে পারেন । অন্যরা যখন দেখেন কেউ খুব আত্মবিশ্বাসের সাথে কোনো কাজ সম্পাদন করেছেন তখন তারা ঐ ব্যক্তির প্রতি আস্থা রাখতে শুরু করেন । আত্মবিশ্বাসের সাথে কাজ করলে কাজ নিঁখুত, নির্ভুল ও কার্যকরী হয়ে উঠে । আত্মবিশ্বাসীরা অন্যদের সমালোচনাকে গঠনমূলক দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখেন । তারা যে সিদ্ধান্ত নেন তারা তার উপর অটল থাকেন এবং তা বাস্তবায়নে সর্বদা তৎপর থাকেন । ফলে অন্যরা তাদের সমালোচনা করা থেকে বিরত থাকেন । দৃঢ় প্রতিজ্ঞ থাকার কারণে যেকোনো কাজে আত্মবিশ্বাসীরা সহজেই সফলতা অর্জন করতে সক্ষম হয় ।

 

এই গেলো আত্মবিশ্বাসী হওয়ার গুরুত্ব । আশা করি কারো বুঝার নাই, এই আত্মবিশ্বাসের গুরুত্ব কতটা । আশা করি সবাই এখন থেকেই , এই আত্মবিশ্বাস গুণ টি চর্চা করা শুরু করবেন যা আপনার জীবন বদলে দিবে ।

চলুন এবার জেনে নেই , কিভাবে আত্মবিশ্বাস অর্জন করবেন ।

আত্মবিশ্বাসী হওয়ার বা অর্জনের উপায়

শিক্ষা মানুষের অন্তর্নিহিত জাগ্রত করে, পরিশীলিত করে । শিক্ষার মাধ্যমে মানুষ আত্মোপলব্ধির সুযোগ পায় । শিক্ষা মানুষকে তার পারিপার্শ্বিক সকল বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করতে ও জানতে সহায়তা করে। ফলে তারা আত্মবিশ্বাসী হওয়ার রসদ পায় ।

আত্মবিশ্বাসী হওয়ার জন্য নিজের শক্তি ও সামর্থ্য সম্পর্কে জানতে হবে । মানুষ হিসেবে তার জীবনে বিভিন্ন কর্মকান্ড ও বাস্তব অভিজ্ঞতা হবে সেগুলো থেকে তাকে বুঝতে হবে সে কোনো বিষয়ে দক্ষ, পারিদর্শী আর কোন বিষয়ে নয় । কারণ মানুষ সব বিষয়ে পারদর্শী হয়ে উঠে না বা হয় না । যা সে ভালো বুঝবে ও ভালো পারে তাই তার শক্তি ও সামর্থ্য । অর্থাৎ আমি কি করতে পারি বা কোন বিষয়ে আমার দক্ষতা বেশি সে বিষয়টি আমার চিহ্নিত করতে হবে । যে বিষয়ে আগ্রহ বেশি সে বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে হবে । প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বা বারবার অনুশীলনের মাধ্যমে নিজের দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে । এতে আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি পাবে আর আপনি আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠবেন ।

 

কোনো কাজ করতে গিয়ে ভুল হলে তা থেকে শিক্ষা নিয়ে আত্মবিশ্বাস বাড়ানো যায় । কী কী কারণে ভুল হলো তা চিহ্নিত করে তা থেকে শিক্ষা নিয়ে পরবর্তী সময় কাজ করলে আর সেই ভুল গুলো হবে না বা হওয়ার আশঙ্খা থাকে না । আত্মবিশ্বাস বাড়াতে হলে কোনো বিষয়ে নেতিবাচক মনোভাব আমাদের পোষণ করানো যাবে না । এ কাজটি কঠিন বা এটা আমার দ্বারা সম্ভব না বা আমি এটা করতে পারবো না এরকম মনো ভাব পোষণ করলে মনে সাহসের ঘাটতি দেখা দিবে, যার ফলে আত্মবিশ্বাস কমে যাবে। ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গির আলোকে বিবেচনা করলে কোনো কাজই কঠিন মনে হবে না এবং আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি পাবে ।

 

আমার মনে হয় আপনারা এই উপায় গুলো যদি মন থেকে মেনে চলেন বা চলার চেষ্টা করেন তাহলে আশা করি আপনি কিছু দিনের মধ্যে নিজের মধ্যে আত্মবিশ্বাস গুণটি উপলব্ধি করবেন ।

পরিশেষে বলতে চাই , একজন মানুষ হিসেবে প্রকৃত মানুষ হিসেবে আমাদের প্রত্যেকে নিজের উপর আস্থা, আত্মবিশ্বাস থাকা উচিৎ । এই গুণ টি কেউ আপনাকে শিখিয়ে দিতে পারবে না । মনে রাখবেন শিক্ষাও কখনো শিখিয়ে দেয়া যায় না । গুরু শুধু আপনার মনে জ্ঞানের বীজ বপণ করতে পারেন তাকে বড় বৃক্ষে পরিণত করার দায়িত্ব আপনার । আর একটি কথা মনে রাখবেন,

“সুশিক্ষিত লোক মাত্রই স্বশিক্ষিত”

কথাটির ব্যাখ্যা অন্য কোনো দিন দিবো আজ না । তাই আত্মবিশ্বাস কি , কিভাবে অর্জন করা যায় তা আমি শিখিয়ে দিতে পারি কিন্তু আপনাকে নিজেই এটা অর্জন করতে হবে । আশা করি আমার আর্টিকেল টা আপনার মনে এই গুণ টা অর্জনের ইচ্ছাকে তৈরি করবে বীজ টা বপণ করবে তাকে আপনি বৃক্ষ করে তুলবেন নাকি আগাছা ভেবে উপড়ে ফেলবেন এটা আপনার একান্ত ইচ্ছা ।

 

আজ এই পর্যন্ত । আর্টিকেলে কোনো প্রকার কোথাও ভুল থাকলে, কোনো প্রকার পরামর্শ এবং আপনাদের অভিমত থাকলে তা কমেন্টের মাধ্যমে জানিয়ে দিবেন । ভালো লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন ।

(পোস্টটি বা আর্টিকেল টি একান্ত ব্যক্তিগত মতামত থেকে লেখা । মতের পার্থক্য থাকতে পারে । সবার মতামতকে সমান শ্রদ্ধা জানাই । কাউকে আমি হীন করে লিখি নেই আর্টিকেলটি। কাউকে কোনো প্রকার আঘাত করলে আমি দুঃখিত)

ধন্যবাদ

-রংধনু

Share This:

রংধনু

আমি আসিফ আমান জিহাদ । একজন শিক্ষার্থী যে নতুন কিছু শিখতে শেখাতে ও জানাতে পছন্দ করে। এবং সর্বদা কথা কাজ তথ্য দিয়ে মানবতার পাশে থাকতে চাই
Close Menu

Content

Share This: