গ্রীন টি (স্বাস্থকর হলেও সাবধান)

স্বাস্হ্যকর হলেও সাবধান!! গ্রীন টি…..

অনেক খাবার আমরা খাই, শরীরের ভালোর জন্য। সেই স্বাস্থ্যকর খাবারের মধ্যে একটি অন্যতম পানিয় হল- গ্রীনটি। এটি শরীরের জন্য খুব ভাল। এছাড়া গ্রীন টি—ওজন কমাতে, রক্তের কোলেষ্টেরল কমাতে অনেক উপকারী একটি পানীয়। গ্রীন টিতে রয়েছে প্রচুর এন্টিঅক্সিডেন্ট যা, স্বাস্থ্যের জন্য খুব ভাল। অনেকেই আছেন পানির মত স্বাস্থ্যের ভালোর জন্য সারাদিন গ্রীন টি পান করে।

অনেক গুনের এই পানীয় তখনই স্বাস্থ্যকর যখন কেউ বুঝে পরিমিত পরিমানে পান করবে। স্বাস্থ্যকর হলেও অতিরিক্ত কোন কিছুই কখনো স্বাস্থ্যের জন্য ভাল নয়।

যাদের পেটে সমস্যা আছে, তারা অতিরিক্ত গ্রীন টি খেলে তাদের পেটের সমস্যা বাড়তে পারে।

অতিরিক্ত গ্রীন টি গ্রহন কিডনির জন্য ঝুকি হয়ে থাকে।

যাদের ব্লাড প্রেশার খুব কম বা বিপি লো তারা গ্রিন টি বেশী খেলে ব্লাড প্রেশার আরও কমে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

যাদের ঘুমে সমস্যা রয়েছে, তারা অতিরিক্ত গ্রীন টি খেলে তাদের আরাও ঘুমে সমস্যা হয়।

কোন কোন ঝুঁকিপূণ Pregnancy – গর্ভাবস্থাতে গ্রীন টি মায়ের জন্য ক্ষতিকর হয়। গর্ভাস্থায় ও স্তনদানকালীন সময়ে গ্রীন টি খেলে অনেক সময় লিভারের সমস্যা হয়, কারও কারো ঘুমের সমস্যা হয়, পাকস্থলী তে অসুবিধা দেখা যেতে পারে।

যারা রক্ত তরলীকরণ এর ঔষধ খায়, তারা গ্রীন টি খেলে ঐ ঔষধের কাজ কমে যায় বা বাধা পায়। আবার এস্পিরিন খেলেও গ্রীন টি তাদের জন্য পান করা ঠিক না।

অনেকের গ্রীন টিতে এলার্জি থাকতে পারে, যদি থাকে তবে তাদের গ্রীন টি এড়িয়ে চলতে হবে। অনেকের অনেক এলার্জিক প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। অনেকের গ্রীন টি পান করার পর অনেক মাথা ঘোরে, এটাও একরকম এলার্জি।

তাই অনেকে হার্টকে ভাল রাখতে বা ওজন কমাতে প্রচুর গ্রীন টি খায়। তবে যেকোন হারবাল বা আয়ুর্বেদ জাতীয় খাবার ডাক্তার এর পরামর্শ ছাড়া কখনই অতিরিক্ত খেলে তা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী নাও হতে পারে।তাই গ্রীন টি কে কতটুকু খাবে তা নির্ভর করবে তার এক্সপার্ট / শারিরীক অবস্থার এর উপর। দিনে দুই কাপ গ্রীন টি পান করা যেতে পারে। অথবা ডাক্তার বা ডায়টিশিয়ান এর পরামর্শ নিয়ে পান করলে ভাল।ধন্যবাদ সবাইকে কস্ট করে পোস্ট টি পড়ার জন্য

Share This:

Shathi

Dhaka Bangladesh
Close Menu

Content

Share This: