দীপু ও তার ঘুড়ি

মা বাবার কোল আলো করে এলো দীপু। দীপু এখন তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ে। দীপুর অনেক ভালো লাগে ঘুড়ি উড়াতে ! আজ দীপুর পরীক্ষার খাতা দিয়েছে ইংলিশে ১০০ মধ্যে পেয়েছে ৭৯। মা দীপুর খাতা দেখলো। মা বাবা দুইজনই দীপুর খাতা দেখে বিস্মিত। বাবা ঘরে দীপুকে অনেক বকতে লাগলো। বাবা দীপুকে বকতে বকতে বললো ইংলিশ তো একদম পানির মতো সোজা সাবজেক্ট। পাশের বাসার চৈতীকে দেখেছিস সে ইংলিশে ১০০ তে ৯০ উঠিয়েছে। আর তুই ? সারা দিন কি করিস ? ছাদে দাঁড়িয়ে কি একটা আছে ঘুড়ি সেটি খালি উড়াস। শোন ভালো ছাত্ৰ হতে হলে ওই সব ঘুড়ি টোরি বাদ দিয়ে লেখাপড়ায় মনোযোগ দে। তার পর মা বাবা দুইজনই সিদ্ধান্ত নিলো দীপুকে কোচিংয়ে ভর্তি করবে। এর পর দীপুর সেই প্রিয় ঘুড়িটি আর উড়ানো হলো না সারাদিন দীপুকে ছুটতে হয় কোচিংয়ে পিছনে। সারাদিন কোচিং আর কোচিং। সকালে পড়া দুপুরে পড়া এমনকি খাওয়ার সময় পড়া বিকেলে পড়া সন্ধে সময় পড়া রাতে পড়া। খালি একগাদা বই দীপুর সামনে। একদিন মা দেখলো দীপু অবেলায় শুয়ে আছে মা দীপুর কপাল ধরে দেখলো। কপাল প্রচন্ড গরম হয়ে আছে দীপু জ্বরে কাঁপছে। দীপু জ্বরে কাঁপতে কাঁপতে ব লছে , বাবা বাবা আমাকে তোমরা মেরো না আমি এ+ প্লাস অবশ্যই পাবো। এই দেখে মা বাবা দুইজনই দীপুকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলো। দীপুর অবস্থা দেখে মা বাবা দুইজনই অনেক কান্নার মতো অবস্থা। দীপুর মা কেঁদে কেঁদে ডাক্তারকে বলছে , ডাক্তার কি হয়েছে আমার ছেলেটার ? আমার ছেলেকে ভালো করে দিন ডাক্তার। ডাক্তার দীপুর মা বাবাকে বললো , অতিরিক্ত টেনশন এবং অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টির ফলে এটি হয়েছে। ওকে সবসময় খোলামেলা পরিবেশে রাখবেন। আর সবসময় খেলাধুলা অবশ্যই শরীরের জন্য দরকার। আপনারা যত টুকু সম্ভব ওকে অতিরিক্ত চাপ এবং টেনশন মুক্ত রাখবেন। তার পর থেকে মা বাবা দুইজনই তাদের ভুলটি বুঝতে পারলো। এর পর মা বাবা দীপুর হাতে তার সেই প্রিয় ঘুড়িটি তুলে দিলো।দীপু তো মহা খুশি ! তার পর দীপুর মা বাবা দুইজনই প্ল্যান করলো ছেলেকে নিয়ে তারা কক্সবাজার ঘুরতে যাবে। মাবাবা দীপু মিলে কক্সবাজার বেড়াতে গেলো। সমুদ্র আর পরিষ্কার নীল আকাশে দীপু তার ঘুড়িটি উড়াচ্ছে ! হঠাৎ দীপুর মা একটি ছবি তুলতে চাইলো ক্যামেরা নিয়ে অনেক আগ্রহের সহিত দীপু ও তার বাবাকে ডাকলো ! দুইজনই আসলো ! অনেক হাসিখুশি নিয়ে দাঁড়ালো দীপু একটু বিস্মিত হয়ে বললো এই যা আমি একাই ছবিটিতে থাকবো সাথে তো আমার ঘুড়িটিকে থাকতে হবে ! এই বলে দীপু তার সঙ্গে থাকা ঘুড়িটিকে নিয়ে ছবি তুললো ! ১,২,৩ !!!!! হাসি !!!!!!!!

Share This:

ROSY BEGUM

আমি রসিক মানুষ। ভালোবাসি ফেইসবুক চালাতে , ম্যাগাজিন পড়তে আর ঘুমাতে।

This Post Has One Comment

Close Menu

Content

Share This: