ধোকা।

ধোকা কথাটি ছোট হলেও —- ধোকা খেয়েই একজন মানুষ তার প্রাণ টুকু ও দিয়ে দেয়। যা বিশাল।।।।।।।।।

রিমি: হেল। কেমন আছেন?
রবি:হেল।ভাল আছি। আপনি কেমন আছেন??

রিমি: জি আমিও ভাল আছি।
রবি: কোন ক্লাস এ পরেন??

রিমি:10 এ পরি। আপনি??
রবি:আমি inter এ পরি।

এভাবেই রবি আর রিমির পরিচয় হয় ফেইসবুক এ।
রিমি রবি কে আগে থেকেই চিনত। এবং সে রবি কে ভালবাসত।
তাই অনেক কষটে রবির id বের করে তাকে request দেয়।
এবং ওই আগে কথা বলা শুরু করে।

রিমি ছিল অনেক কালো। তাই রিমি চাইত না যে রবি কখনো তাকে দেখুক।

রবি ছিল অভদ্র ছেলে।
মানুষকে ঠকানুই ছিল তার কাজ।মানুষকে ঠকাতে ধোকা দিতে সে অনেক মজা পেত।

রবি ৫ দিনের মাথায় রিমি কে propose করে।
রিমি অনেক খুশি হয়। এবং accept ও করে তাকে। রিমি জানতো না যে রবি খারাপ ছেলে।
সে রবি কে মন প্রান দিয়ে ভালবাসত।
কিন্তু রবি শুধু তাকে use করার জন্য তার সাথে ভালবাসার অভিনয় করছিল।
২ মাস খুব ভালভাবেই কাটে তাদের।
রিমি কে কখনো রবি দেখতে ও চায় নি। রিমি ও দেখাতে চায়নি কখনো নিজেগে।
ও ভয় পেত যদি রবি ওকে ছেরে চলে যায়।
রিমির কাছে রবি টাকা চাইত। dress. চাইত। অনেক কিছুই চাইত।
রিমির কষট হলেও রবির চাওয়া জিনিসগুল যোগার করে রবিকে দিত।
কিন্তু সে নিজে কখনো গিয়ে দেয় নি।
রিমি আস্তে আস্তে রবির সব কথা যানতে থাকে।
তার অনেক gf আছে ; মানুষকে ঠকায় সে ; অনেক খারাপ ছেলে এই সকল কিছু জানার পরেও সে রবি কে ছারে নি।
সে চেষটা করেছে রবি কে ঠিক পথে আনা। কিন্তু রবি তার কথা শুনত না।।। আরো খারাপ ব্যাবহার করত তার সাথে

তবু রিমি রবিকে ছারে নি।
কারন সে অনেক ভালভাসত রবি কে।

রবি একদিন দেখা করতে চায় রিমির সাথে। রিমির ইচ্ছা না থাকা সত্তেও সে যায় দেখা করতে।
রবি রিমি কে দেখার পর সবার সামনে তাকে অপমান করে। অনেক কথা শুনাত তাকে। বলে এই চেহারা নিয়ে কেন প্রেম করতে আসছে।
এভাবে অনেক অপমান করে তাকে।
তাকে সারা জিবন একসাথে থাকার কথা দিয়েছিল রবি।
কিন্তু সব কিছুই মিথ্যা ছিল।
ধোকা ও কষট দিয়ে চলে যায় সে।
অনেক কেদেছিল রিমি সেদিন।
এত কষট সহ্য করতে না পেরে সে শেষ পর্যন্ত তার জীবন দিয়ে দেয়।

মৃত্যু দিয়ে শেষ হয় এই গল্পের কাহিনী।

END
THANKS

Share This:

This Post Has 2 Comments

Close Menu

Content

Share This: