প্রেম বেহেস্তের ফল পর্ব ১

রাত ১১টা ।আবিরের পাশে ফোনটা বেজেই চলেছে।কিন্তু আবির আলসেমি করে তুলছে না।শেষে ফোনটা তুলে ঘুম জড়ানো কণ্ঠে আবির বলল-হ্যালো,কে?
ও পাশ থেকে একটা সুমধুর মেয়েলী কণ্ঠ ভেসে আসলো
-এখন অত কথা বলতে পারছিনা।আমি তোমার সাথে কাল বিকালে না না কাল সকালে দেখা করতে চাই।বল কোথায় আসবে
আবির-কিন্তু আমি তো আপনাকে চিনিনা।অন্য কিছু না বলেন অন্তত আপনার নাম টা তো জানতে পারি?
-আমি ফারিহা।দয়া করে আর কোনো প্রশ্ন করোনা।বল কাল কোথায় আসবে?
ভারী বেয়াদব মেয়ে তো!আমি তাকে আপনি বলে ডাকছি আর সে ডাইরেক্ট তুমিতে চলে এসেছে।মনেমনে বলল আবির।
আবির-আচ্ছা কাল পার্কে দেখা করি?
ফারিহা-আচ্ছা ঠিক আছে।কিন্তু কয়টার সময় আসবে?
আবির-কাল সকাল ১ টার দিকে।
ফারিহা-ওহ ঠিক আছে।,,,কি?সকাল ১টা ?আগে টাইম পাল্টাও তা না হলে সত্যি সত্যি ১টার সময় তোমার বাড়ি যাব।
আবির-আচ্ছা ঠিক আছে কাল সকাল ৯ টার সময় দেখা করেন।
ফারিহা-ঠিক আছে বাই।
আবির সারারাত ভাবতে থাকে সেতো মেয়েটাকে চেনে না।তাহলে মেয়েটা তাকে চিনলো কি করে?আর সে কেন আবিরের সাথে দেখা করতে চাচ্ছে?যাইহোক বাবা কাল তো তার সাথে আবিরের দেখা হচ্ছে।তখন ফারিহার কাছ থেকে জেনে নেওয়া যাবে।এইসব কথা মনে করতে করতে আবির ঘুমিয়ে পড়লো।ফজরের আযান শুনে আবিরের ঘুম ভেঙে যায়।আবির তাড়াতাড়ি উঠে ওযু করে নামাজ পড়ে।নামাজ পড়া হয়ে গেলে আবির আর এক ঘুম দেয়।সকাল ৮ টার এলার্মে তার ঘুম ভাঙে।এখন যদি ব্রেকফাস্ট করতে যায় তাহলে পার্ক যেতে নির্ঘাত দেরি হয়ে যাবে।তাই আবির শুধু ফ্রেস হয়ে চলে যায় পার্কে।৯টা বাজতে এখন ও ৫ মিনিট বাকি আছে।কিছু সময় পর আবির দেখল যে একটা সুন্দরী যুবতী তার দিকে এগিয়ে আসছে।সে একপাশে বসে তার দিকে লক্ষ্য করল,মেয়েটা সাদা সালোয়ার ও হাল্কা ঘিয়ে কালালের কামিজ পরেছে।বুকের উপর উড়না নেই।কানে দুটো সরু রিং।দু'হাতে একগাছি করে সোনার চুড়ি।পায়ে বাটার স্যান্ডেল।চুল বেণী কর বাধা।এখন বেণীটা বুকের দুই উচু মাংসপিন্ডের মাঝ দিয়ে ঝুলে আছে।মেয়েটা কাছাকাছি আসতেই আবির দৃষ্টিটা সরিয়ে নিল।ফারিহা এসে বলল আমি তোমার সাথে আলাপ করতে চাই।
আবির-ঠিক আছে।কিন্তু আপনি কি বলবেন যে আমাকে আপনি চেনেন কিভাবে?
ফারিহা-সেদিন আপনার জন্যই আমার বান্ধবীর বিয়ে ভেঙে গিয়েছিল।।
এতক্ষণে আবিরের মনে পড়ল আসল ঘটনাটা।যে ফারিহার বান্ধবী আসিয়ার যার সাথে বিয়ে হচ্ছিল সে ছিল একজন প্রতারক।তাই আবির তাকে পুলিশের হাতে ধরিয়ে দেয়।আর সেই পুরো ঘটনাটিতে একটি মেয়ে আবির কে ফলো করেছে।
আবির-বলুন আপনি আমাকে কি বলতে চান।
ফারিহা-এখানে নয়।আমার খুব ভুখ লেগেছে আগে কোনো রেস্তরায় চলো।
আবির-ঠিক আছে সামনে একটা রেস্তরা আছে সেখানে চলেন।
তারা রেস্তরায় ঢুকে এক কোণে সামসামনি বসল।
আবির-এবার বলুন কি বলতে চান?
ফারিহা-আমার নাম ফারিহা।ভার্সিটিতে ইংলিশে অনার্স নিয়ে এবছর ভর্তী হয়েছি।একটা ভাই আজে তার নাম নাইম।আমার বাবা একজন বিজনেস ম্যান।এবার তোমার টা বলো?
ফারিহার কথা শুনে আবিরের ধারণা হল মেয়েটার মাথায় গোলমাল আছে।
আবির-যখন কিছু কিছু জানেন তখন আর কি বলব।ও হ্যা আপনাদের তো বলতেই ভুলে গেছি,আবির ইংলিশে অনার্স শেষ করে বর্তমানে ছোট খাট ব্যবসা করছে।এটা ফারিহা জানে।
ফারিহা-আমার পুরোটা বললাম। তোমার পুরোটা জানতে ইচ্ছে করছে।
আবির তার পরিচয়টা কিঞ্চিত বর্ণনা করে বলতেই ফারিহা তার হাতে একটা ভিজিটিং কার্ড ধরিয়ে দিল।
আবির-এটা কি?
ফারিহা-এটা নিয়ে নিচের ঠিকানায় চলে আসবে।
আবির-আমি এই ঠিকানায় গেলে তোমার কি লাভ?
ফারিহা-আমার কোনো লাভ নেই।তবে তোমার লাভ আছে।এই কার্ডটা আমার আব্বুর অফিসে নিয়ে গেলে তিনি তোমাকে উপযুক্ত একটা ভাল চাকরি দেবেন।
আবির-আমাকে এই কার্ড দেবার কারণ?আর এতে তোমার লাভ কি?(কথার মাঝে আবির ও তুমিতে চলে এসেছে)
ফারিহা-কারণ আই লাভ ইউ ডিপলি।
আবির-হোয়াট?
ফারিহা-ইয়েস আই লাভ ইউ ডিপলি।
(পরের পর্বটি পেতে আমাদের সাথেই থাকূন এবং এই পোস্টটি শেয়ার করুন।)

Share This:

Shakil

আমি ব্লগ এর জগতে নতুন।তাই লেখার হাত ও এখনো অনুন্নত,উন্নত করার চেষ্টায় আছি প্রতিনিয়ত।।আর তখন ই উন্নত হবে, যখন আপনারা আমার পোস্ট সম্পর্কে মন্তব্য করবেন।সেটা খারাপ হোক বা ভালো।
Close Menu

Content

Share This: